মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১২ August ২০২০

দৈর্ঘ্য এবং মাত্রা পরিমাপ ল্যাবরেটরি

টেকনিক্যাল বিষয়ে যোগাযোগ:

 

  • মোঃ সাইদুর রহমান, সহকারী পরিচালক

ল্যাব দায়িত্বঃ ডেপুটি হেড লেন্থ ও ডাইমেনশন  ল্যাবরেটরী, এনএমএল-বিএসটিআই

সেল +৮৮০১৯১৩২২০৩৯৯

ইমেইলঃ md.shaidurr@yahoo.co.uk

 

  • রুবিনা আখতার, পরিদর্শক

ল্যাব দায়িত্বঃ মেট্রোলজিস্ট, লেন্থ ও ডাইমেনশন  ল্যাবরেটরী, এনএমএল-বিএসটিআই

ফোনঃ +৮৮০১৭১৭০২৩২২২

ই-মেইলঃ rubinadu@gmail.com

 

 আন্তর্জাতিক পদ্ধতিতে দৈর্ঘ্যের একক মিটার (Metre) । আন্তর্জাতিক পদ্ধতিতে মিটারের প্রতীক m । মিটার শব্দটি গ্রীক ভাষা হতে নেয়া হয়। শূন্যস্থানে এক সেকেন্ডের ১/২৯৯,৭৯২,৪৫৮ ভাগ সময়ে আলো যে দূরত্ব অতিক্রম করে, তাকে এক মিটার হিসাবে সংজ্ঞায়িত করা হয়।

 

১৭৯৩ সালে মিটারকে প্রথম সংজ্ঞায়িত করা হয়, যার পরিমাপ পৃথিবীর বিষুবরেখা থেকে উত্তর মেরুর দূরত্বের দশ মিলিয়ন ভাগের এক ভাগ। ১৭৯৯ সালে প্রটোটাইপ মিটার বারের মাধ্যমে মিটারকে পুনরায় সংজ্ঞায়িত করা হয়। ১৮৮৯ এবং ১৯২৭ সালে প্রকৃত মিটার বারটি পরিবর্তিত হয়। ১৯৬০ সালে ক্রিপটন-৮৬ এর নির্দিষ্ট সংখ্যক তরঙ্গ দৈর্ঘ্যরে একটি নির্দিষ্ট নিঃসরন লাইনের মাধ্যমে মিটারকে পুনরায় সংজ্ঞায়িত করা হয়। ১৯৮৩ সালে মিটারের বর্তমান সংজ্ঞাটি গ্রহণ করা হয়।

 

ন্যাশনাল মেট্রোলজি ল্যাবরেটরী, বাংলাদেশ (এনএমএল-বিএসটিআই) এ লেন্থের স্ট্যান্ডার্ড হিসেবে কে-গ্রেড গেজব্লক সংরক্ষিত আছে। এছাড়াও এই ল্যাবরেটরীতে গেজব্লক কম্প্যারেটর, ইউনিভার্সেল লেন্থ মেজারিং মেশিন, ডায়ালগেজ ক্যালিব্রেটর, টেপ-ক্যালিব্রেটর প্রভৃতি যন্ত্রপাতি আছে।

 

ক্যালিব্রেশন এবং মেজারমেন্ট ক্যাপাবিলিটি (সিএমসি) প্রমাণের জন্য লেন্থ ল্যাবরেটরী সার্ক-পিটিবি আয়োজিত ইন্টার ল্যাবরেটরী কম্প্যারিজন ও কিছু দ্বি-পাক্ষিক ইন্টার ল্যাবরেটরী কম্প্যারিজন এ অংশ গ্রহণ করেছে।

 

লেন্থ ল্যাবরেটরীতে গেজব্লক, স্ট্যান্ডার্ড রুলার, মেজারিং টেপ, ভার্নিয়ার ক্যালিপার, মাইক্রোমিটার, ডায়ালগেজ, টেপ-ক্যালিব্রেটর, রিংগেজ, হাইটগেজ প্রভৃতি যন্ত্রপাতি ক্যালিব্রেশন করা হয়।


Share with :

Facebook Facebook